রাত ২:২৮ | বুধবার | ১৪ই জুলাই, ২০২০ ইং | ৩১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চলে গেলেন ভাষা সৈনিক শমসের উদ্দিন

চলে গেলেন ভাষা সৈনিক শমসের উদ্দিন মোহাম্মাদ (কাহার মাস্টার)। শুক্রবার বেলা সোয়া ১১টায় বার্ধক্যজনিত কারণে গোপালগঞ্জ শহরে মেয়ের বাড়িতে ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯০ বছর।

জানা গেছে, শমসের উদ্দিন মোহাম্মাদ বাংলা ভাষা আন্দোলনের অন্যতম সৈনিক ছিলেন। শত প্রতিকূলতার মধ্যে ভাষা ও দেশের প্রতি তাঁর অকুন্ঠ ভালবাসা নতুন প্রজন্মকে উজ্জীবিত করেছে। তিনি ১৯২৯ সালের ৭ অক্টোবর গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার রাতইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাল্যকাল থেকেই তিনি খুবই স্বাধীনচেতা ছিলেন। কলকাতা বালিকা বিদ্যামন্দিরে তার পাঠ গ্রহণের সূচনা হয়। পরবর্তীতে কোলকাতার এটি মিত্র ইনস্টিটিউশনে দশম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করার পর দেশ বিভাগের কারনে নিজ গ্রামে ফিরে আসেন। অতঃপর ১৯৪৮ সালে যশোর জেলার আলফাডাঙ্গা থানার কামারগ্রাম কাঞ্চন একাডেমি থেকে কৃতিত্বের সাথে ম্যাট্রিক পাস করার পর ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজে ভর্তি হন। সেখান থেকে কৃতিত্বে সাথে আই এ পাস করার পর ১৯৫০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নকালে ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। পাকিস্তান সরকারের রোষানলে পড়ে তিন বার জেল খেটেছেন তিনি। ১৯৫৪ সালে বিএজি পাশ করার পর শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। ১৯৬০-৬৪ সাল পর্যন্ত তিনি রাতইল নায়েবুন্নেছা ইনিস্টিটিউশনে প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

১৯৬৫-৭০ সাল পর্যন্ত সাফল্যের সাথে নারায়নগঞ্জ বন্দর হাইস্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ সময়ে তিনি জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিন বছর বিরতির পর ১৯৭৩ সালে প্রধান শিক্ষক হিসেবে গোপালগঞ্জ হাই স্কুলে যোগদান করেন এবং ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত সেখানে দায়িত্ব পালনের পর ১৯৮৫ সালে গোপালগঞ্জের খন্দকার শামস উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ওই স্কুল থেকে ১৯৯২ সালে অবসরে যান তিনি।

ভাষা সৈনিক শমসের উদ্দিনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল, বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে শুক্রবার বাদ মাগরিব রাতইল পূর্বপাড়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠে মরহুমের নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

Views All Time
Views All Time
222
Views Today
Views Today
2

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» কাশিয়ানীতে করোনায় পল্লী চিকিৎসকের মৃত্যু; সৎকার করলেন ইউএনও

» বাড়ি নয়, সব মুক্তিযোদ্ধাকে গৃহঋণ দিন– আবীর আহাদ

» কাশিয়ানীতে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

» কাশিয়ানীতে নিষিদ্ধ পিরানহা ও কারেন্ট জাল জব্দ

» কাশিয়ানীতে সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে সাংবাদিক লাঞ্ছিত

» কাশিয়ানীতে কুঠির খাল দখলমুক্ত করতে প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযান শুরু

» গোপালগঞ্জে বিকাশ প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার

» জরাজীর্ণ সেতু: ২০ গ্রামের কয়েক লাখ মানুষের দুর্ভোগ

» কাশিয়ানীতে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করায় দু’জনকে অর্থদন্ড করলেন এসিল্যান্ড

» কাশিয়ানী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি করোনায় আক্রান্ত

» করোনা পরিস্থিতিতে কাজী মার্কেটের ভাড়া মৌকুফ করে দিলেন কাজী নিজাম

» গোপালগঞ্জে করোনায় মৃত বাবার লাশ ফেলে পালাল ছেলে সৎকার করলেন ইউএনও

» সাতক্ষীরায় করোনা আক্রান্ত হয়ে ১ম মৃত্যু!

» গোপালগঞ্জে নকল স্যাভলন বিক্রির দায়ে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা

» কাশিয়ানীতে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, ড্রেজার ধ্বংস

পরিচালনা পর্ষদ

প্রধান উপদেষ্টা : মোঃ গোলাম মোস্তফা

প্রধান সম্পাদক : নিজামুল আলম মোরাদ

সম্পাদক & প্রকাশক : পরশ উজির

পরিচালনা পর্ষদ

অঞ্চলিক অফিস ও সম্পাদকীয় কার্যালয় : প্রেস ক্লাব,
কাশিয়ানী, গোপালগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ
নিউজ রুম : kashiani09@gmail.com 01911079050

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited

,

চলে গেলেন ভাষা সৈনিক শমসের উদ্দিন

চলে গেলেন ভাষা সৈনিক শমসের উদ্দিন মোহাম্মাদ (কাহার মাস্টার)। শুক্রবার বেলা সোয়া ১১টায় বার্ধক্যজনিত কারণে গোপালগঞ্জ শহরে মেয়ের বাড়িতে ইন্তেকাল করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯০ বছর।

জানা গেছে, শমসের উদ্দিন মোহাম্মাদ বাংলা ভাষা আন্দোলনের অন্যতম সৈনিক ছিলেন। শত প্রতিকূলতার মধ্যে ভাষা ও দেশের প্রতি তাঁর অকুন্ঠ ভালবাসা নতুন প্রজন্মকে উজ্জীবিত করেছে। তিনি ১৯২৯ সালের ৭ অক্টোবর গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার রাতইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাল্যকাল থেকেই তিনি খুবই স্বাধীনচেতা ছিলেন। কলকাতা বালিকা বিদ্যামন্দিরে তার পাঠ গ্রহণের সূচনা হয়। পরবর্তীতে কোলকাতার এটি মিত্র ইনস্টিটিউশনে দশম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করার পর দেশ বিভাগের কারনে নিজ গ্রামে ফিরে আসেন। অতঃপর ১৯৪৮ সালে যশোর জেলার আলফাডাঙ্গা থানার কামারগ্রাম কাঞ্চন একাডেমি থেকে কৃতিত্বের সাথে ম্যাট্রিক পাস করার পর ফরিদপুর রাজেন্দ্র কলেজে ভর্তি হন। সেখান থেকে কৃতিত্বে সাথে আই এ পাস করার পর ১৯৫০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নকালে ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। পাকিস্তান সরকারের রোষানলে পড়ে তিন বার জেল খেটেছেন তিনি। ১৯৫৪ সালে বিএজি পাশ করার পর শিক্ষকতা পেশায় যোগদান করেন। ১৯৬০-৬৪ সাল পর্যন্ত তিনি রাতইল নায়েবুন্নেছা ইনিস্টিটিউশনে প্রধান শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

১৯৬৫-৭০ সাল পর্যন্ত সাফল্যের সাথে নারায়নগঞ্জ বন্দর হাইস্কুলে প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এ সময়ে তিনি জেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। তিন বছর বিরতির পর ১৯৭৩ সালে প্রধান শিক্ষক হিসেবে গোপালগঞ্জ হাই স্কুলে যোগদান করেন এবং ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত সেখানে দায়িত্ব পালনের পর ১৯৮৫ সালে গোপালগঞ্জের খন্দকার শামস উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ওই স্কুল থেকে ১৯৯২ সালে অবসরে যান তিনি।

ভাষা সৈনিক শমসের উদ্দিনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল, বিভিন্ন স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক এবং রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে শুক্রবার বাদ মাগরিব রাতইল পূর্বপাড়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা মাঠে মরহুমের নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

Views All Time
Views All Time
222
Views Today
Views Today
2

সর্বশেষ আপডেট



এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



পরিচালনা পর্ষদ

প্রধান উপদেষ্টা : মোঃ গোলাম মোস্তফা

প্রধান সম্পাদক : নিজামুল আলম মোরাদ

সম্পাদক & প্রকাশক : পরশ উজির

পরিচালনা পর্ষদ

অঞ্চলিক অফিস ও সম্পাদকীয় কার্যালয় : প্রেস ক্লাব,
কাশিয়ানী, গোপালগঞ্জ, ঢাকা, বাংলাদেশ
নিউজ রুম : kashiani09@gmail.com 01911079050

Design & Devaloped BY Creation IT BD Limited